ঈদের উৎসবে-সিলেটের হোটেলগুলোতে পর্যটকদের অগ্রিম বুকিং

রিপোর্টার নামঃ
  • বৃহস্পতিবার, ২৮ এপ্রিল, ২০২২
  • ১২২ বার পড়া হয়েছে

নিউজ ডেস্ক :: দুয়ারে কড়া নাড়ছে মুসলিম উম্মাহের প্রধান ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর। আর মাত্র ৩ অথবা ৪ দিন- আগামী শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখাসাপেক্ষে মে মাসের ২ অথবা ৩ তারিখ দেশে ঈদুল ফিতর উদযাপন করবেন মুসলমানরা।

এদিকে, পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে সিলেট মহানগরীর আবাসিক হোটেলগুলোতে পর্যটকেরা অগ্রিম বুকিং করতে শুরু করছেন। ঈদের ছুটিতে হোটেলগুলোতে পর্যটকদের সমাগম ভালো হবে বলে আশা করছেন হোটেল ব্যবসায়ীরা।

 

সিলেটের হোটেল, মোটেল ও পর্যটন-সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আগামী ৪ থেকে ৬ মে পর্যন্ত শহরের হোটেলগুলোর অর্ধেকের বেশি কক্ষ অগ্রিম বুকিং হয়ে গেছে। এ ছাড়া এখনো পর্যায়ক্রমে অনেকেই বুকিং করছেন। বেশির ভাগ পর্যটকেরাই ঢাকা ও চট্টগ্রামের।

নগরীর আম্বরখানা এলাকার ব্রিটানিয়া হোটেলের ব্যবস্থাপক (বিপণন) কাওসার খান বলেন, এখন পর্যন্ত ৫০ শতাংশের বেশি কক্ষ বুকিং হয়ে গেছে। এখনো অনেকে যোগাযোগ করে অগ্রিম বুকিং করছেন। আবার অনেকে টিকিট নিশ্চিত না হওয়ায় একটু সময় নিচ্ছেন। যাঁরা অগ্রিম বুকিং করছেন, তাঁদের বেশির ভাগই সরকারি ও বিভিন্ন বেসরকারি চাকরিজীবী। ঈদের ছুটিতে সব কক্ষই পরিপূর্ণ থাকবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

তবে সিলেট নগরীর আশপাশ এলাকার রিসোর্টগুলোতে উল্টো চিত্র দেখা গেছে। আকর্ষণীয় বিভিন্ন অফারের ঘোষণা দেওয়া হলেও পর্যটক টানতে পারছে না রিসোর্টগুলো। এবারের ঈদে গত দুই বছরের ঘাটতি কাটিয়ে ওঠার আশা করেছিলেন রিসোর্ট ব্যবসায়ীরা। তবে পর্যটকদের সাড়া না পেয়ে তাঁরা এখন হতাশ।

সিলেটের নাজিমগড় রিসোর্টের মহাব্যবস্থাপক (বিক্রয় ও বিপণন) খায়রুল আনাম বলেন, এখন পর্যন্ত রিসোর্টের প্রায় ২৫ শতাংশ অগ্রিম বুকিং হয়েছে। কিন্তু করোনার আগে এমন সময়ে রিসোর্ট জমজমাট থাকত। এখনই সিলেটের পর্যটকদের মৌসুম। এই সময়ে সিলেটের বেশিরভাগ পর্যটনকেন্দ্র স্বরূপে ফিরে আসে। কিন্তু ওই হিসেবে পর্যটক নেই। ভারতের ভ্রমণ ভিসা চালু হওয়ার কারণে অনেক পর্যটক সেখানে যাচ্ছেন। আবার করোনা পুরোপুরি চলে না যাওয়ায় বিদেশি পর্যটকদের আনাগোনাও কমসে। সূত্র: সিলেটভিউ

আরো সংবাদ পড়ুন
© All rights reserved © 2021 Anushondhan News
Developed by Host for Domain